Top banner ads

চাঁদপুর জেলা পরিচিতি (বিস্তারিত)। জেলা ও উপজেলার মানচিত্রসহ। Chandpur District Bangladesh.

চাঁদপুর জেলা পরিচিতি (বিস্তারিত)


জেলা পরিচিতিঃ

তৎকালীন ব্রিটিশ আমলের ত্রিপুরা জেলা পরবর্তীতে যা কুমিল্লা নামে পরিচিত। যে তিনটি মহকুমা নিয়ে গঠিত ছিল চাঁদপুর তাদের অন্যতম।  
চাঁদপুর নামক এই জনপদটির ইতিহাস হাজার বছরের হলেও এর নামকরণের বয়স ৭শ বছর বাতার কমবেশি। মেঘনা, ডাকাতিয়া, ধনাগোদা নদীর কোল জুড়ে প্রায়  ১৭০৪.০৬ বর্গ কিলোমিটারের একটি মাজারি ঘন সবুজ ভূখণ্ডের নাম চাঁদপুর। যদিও ডাকাতিয়া এখন অনেক
  সংকীর্ণ আকারে চলে আসছে । রূপালি ইলিশের দেশ চাঁদপুর। তিন নদীর মোহনার দেশ চাঁদপুর ।

 
ilisher sohor chandpur.abcbanglabd.com


ইলিশ মাছের প্রজনন অঞ্চল হিসেবে চাঁদপুরকে "ইলিশের বাড়ি" নামে ডাকা হয়।  ১৯৮৪ সালে চাঁদপুর জেলা হিসাবে স্বীকৃতি লাভ করে পূর্বে এটি বৃহত্তর কুমিল্লার একটি অংশ ছিল।
----------------------------------------------------------------------------------------

সীমানাঃ
আয়তন প্রায় ১৭০৪.০৬ বর্গ কিলোমিটার

এই জেলার  উত্তরে মুন্সিগঞ্জ এবং কুমিল্লা, দক্ষিণে নোয়াখালীলক্ষ্মীপুরবরিশাল জেলা, পূর্বে কুমিল্লা জেলা এবং পশ্চিমে মেঘনা নদী  শরিয়তপুর এবং মুন্সিগঞ্জ জেলা রয়েছে । 
চাঁদপুর জেলা বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য দুটি নদীর মিলনস্থলে ও তিন নদীর মোহনায় অবস্থিত। পদ্মা মেঘনা নদী দুটি চাঁদপুর শহরের কাছে এসে মিলেছে যেটি বড় স্টেশন নামে পরিচিতমেঘনা নদী ডাকাতিয়া নদী, ধোনাগোদা নদী মতলব নদীর সাথে যুক্ত।
----------------------------------------------------------------------------------------
ইতিহাস (নামকরণের )
বারভূঁইয়াদের আমলে চাঁদপুর অঞ্চল মুলত বিক্রমপুরের জমিদার চাঁদরায়ের সিমানায় ছিল। অঞ্চলে তিনি একটি শাসনকেন্দ্রও স্থাপন করেছিলেন। এছাড়া ঐতিহাসিক জে. এম. সেনগুপ্তের মতে, চাঁদ রায়ের নাম অনুসারে অঞ্চলের নাম হয়েছে চাঁদপুর।
কেহ কেহ বলেন, চাঁদপুর শহরের (কোড়ালিয়া) পুরিন্দপুর মহল্লার চাঁদ ফকিরের নাম অনুসারে অঞ্চলের নাম চাঁদপুর হয়আবার কারো কারো মতে, শাহ আহমেদ চাঁদ নামক একজন প্রশাসক দিল্লী থেকে পঞ্চদশ শতকে এখানে এসে একটি নদীবন্দর স্থাপন করেছিলেন,পরবর্তীতে তার নামানুসারে নাম হয়েছে চাঁদপুর।
১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের সময় চাঁদপুর অঞ্চল নং সেক্টরের অধীনে ছিলো

ব্র্যান্ডিং জেলাঃ  
২০১৭ সালে দেশের প্রথম ব্র্যান্ডিং জেলা হিসেবে চাঁদপুরকে স্বীকৃতি দেয়। একইসাথেইলিশের বাড়ি চাঁদপুরএর রূপকার হিসেবে স্বীকৃতি পান তৎকালিন জেলা প্রশাসক মো. আব্দুস সবুর মন্ডল 
(সালঃ ২০১৫-২০১৮Top of Form

----------------------------------------------------------------------------------------
চাঁদপুর জেলা  (এক নজরে):

ক্রমিক নং             
  শিরোনাম 
        তথ্যের সংক্ষিপ্ত বিবরণ
০১
ভৌগোলিক অবস্থান ও আয়তন
 ২৩২৯  থেকে ২৩৪ উত্তর অক্ষাংশ
 ৯০৬ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ থেকে ৯০৯ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ    অবস্তিত।
০২
আয়তন
   প্রায় ১,৭৪০.৬ বর্গ কিলোমিটার।
০৩
জনসংখ্যা 
( সর্বশেষ আদমশুমারি )
    মোট: ২৬,০০,২৬৩
       পুরুষ: ১৩,৫৪,৭৩২ জন
       মহিলা: ১২,৪৫,৫৩১ জন 
০৪
মোট ভোটার সংখ্যা
     মোট:১৪,১১,৬০৬
      পুরুষ: ৭,৩৬,৯৩৭, জন 
      মহিলা: ৬,৭৪,৬৬৯ জন।
০৫
উপজেলা
  
আট  টি। 
সদর(চাঁদপুর)হাজীগঞ্জ,  শাহরাস্তিহাইমচর,  ফরিদগঞ্জকচুয়া, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ।
০৬
থানা

আট টি।
সদর (চাঁদপুর),  হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তিহাইমচর,ফরিদগঞ্জকচুয়া, মতলব দক্ষিণও মতলবউত্তর।
০৭
পৌরসভা

সাত টি।
চাঁদপুর, হাজীগঞ্জ, শাহরাস্তি, ফরিদগঞ্জ, কচুয়া,ছেঙ্গারচরও মতলব ।
০৮
ইউনিয়ন
 ৮৯ (উননব্বই) টি আছে।
০৯
গ্রাম
১৩৬৫  টি (এক হাজার তিনশত পঁয়ষট্টি) আছে ।
১০
সিটি কর্পোরেশন
নাই (০) ।  
১১
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান
        সরকারি কলেজ ০২টি।
        বেসরকারি কলেজ ৪৫টি।
        পলিটেকনিক ০১টি।
        টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ ০১ টি।
        মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২৪৯টি।
        সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৭টি।
        বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১৯টি।
        সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৭৮৬টি।
        রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় ২২৭টি।
        আনরেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৪টি।
        কমিউনিটি বিদ্যালয় ৯৩টি।
        প্রাথমিক  শিক্ষক প্রিক্ষণ ইনস্টিটিউট ০১টি।
  ১২
মৌজা আছে
১০৪১ টি
১৩
নদ-নদী 
মেঘনাঃ দৈর্ঘ্য: ১৪১.৫ নটিক্যাল মাইল।  চাঁদপুর  জেলার মধ্যে আছে প্রবাহিত ৪০    নটিক্যাল মাইল।

ডাকাতিয়াঃ দৈর্ঘ্য: ১২৫ নটিক্যাল মাইল। চাঁদপুর জেলার মধ্যে আছে   প্রবাহিত ৭০ নটিক্যাল মাইল।

ধনাগোদাঃ দৈর্ঘ্য: ২৫ নটিক্যাল মাইল। চাঁদপুর জেলার মধ্যে  আছে ২৫ নটিক্যাল মাইল।
১৪
বদ্ধ জলমহাল ২০ একরের ঊর্ধ্বে ও অনুর্ধ্ব ২০ একর
  মোট বদ্ধজলমহাল-১৫৫টি।
     ২০ একরের ঊর্ধ্বে - ১০টি ।
     অনুর্ধ্ব ২০ একর - ১৪৫টি।
১৫
উন্মুক্ত জল 
 নাই। 
১৬
 জেলার উল্লেখযোগ্য হাট ও বাজার
মোট হাটবাজার ২১২ টি। উলেস্নখযোগ্য হাটবাজারঃ পুরাণ বাজার, নতুন বাজার,বাবুরহাট বাজার, কচুয়া বাজার, রহিমানগর বাজার, ফরিদগঞ্জ বাজার, রূপসা বাজার, হাজীগঞ্জ বাজার, সুচিপাড়া বাজার, বেগম বাজার, ওয়ারম্নক, মতলব বাজার, নায়েরগাঁও বাজার, নারায়নপুর বাজার, খাজুরিয়া বাজার, সুজাতপুর বাজার, ঠাকুর বাজার, ছেংগারচর বাজার, সাচার বাজার।
১৭
জমি সংক্রান্ত   (তথ্য সর্বশেষ আদমশুমারি )
      মোট জমি ১,৬৭,০০৯ হেঃ।
      মোট আবাদি জমির পরিমাণ ১,৬৫,১১৪ হেঃ,
      নীট ফসলি জমি ৯৮২৬৩ হেঃ।
      আবাদি জমি ১০৮৫৩০ হেঃ।
      সাময়িক পতিত জমি ১০২৬৭ হেঃ,
      একফসলি জমি ২২৭১৬ হেঃ।
      দুইফসলি জমি ৫৬৬৮৭ হেঃ।
      তিনফসলি জমি১৮৩৩১ হেঃ।
      তিনের অধিক ফসলি জমি ৬২৯ হেঃ।
১৮
ইউনিয়ন/পৌর ভূমি অফিস
  ৭২টি
১৯
পাকা রাস্তা
 প্রায়  ২৮৫ কিমি।
২০
কাঁচা রাস্তা
  প্রায় ,৩৬০ কিমি।
২১
রেলপথ
  প্রায় ৪১ কিমি।

২২
নৌ-পথ
 প্রায় ২০৩ কিমি।

২৩
নৌ-বন্দর
  ১টি।
২৪
আবাসন প্রকল্প ও আশ্রয়ন প্রকল্প 
ফেইজ-১ এর আওতায় মোট ০৯টি।
ঘোড়ামারা আশ্রয়ন প্রকল্প, লক্ষ্মীপুর আশ্রয়ন প্রকল্প, শেখের হাট আশ্রয়ন প্রকল্প, উত্তর রঘুনাথপুর আশ্রয়ন প্রকল্প, এখলাছপুর আশ্রয়ন প্রকল্প, নাউলা আশ্রয়ণ প্রকল্প, শিমুলীয়া আশ্রয়ন প্রকল্প, চরকোড়ালিয়া আশ্রয়ন প্রকল্প, জালিয়ার চর আশ্রয়ন প্রকল্প।
ফেইজ-২ এর আওতায় মোট ০৭টি।
ঘোড়ামারা আবাসন প্রকল্প, শেখের হাট আবাসন প্রকল্প, চরমুকুন্দি আবাসন প্রকল্প, বড়দূর্গাপুর আবাসন প্রকল্প, এখলাছপুর আবাসন প্রকল্প, চর উমেদ আবাসন প্রকল্প, বেলতলী আবাসন প্রকল্প।
২৫
আদর্শ গ্রাম
আদর্শ গ্রাম  ৬ টি ।
ইচলী আদর্শ গ্রাম, শতরূপা আদর্শ গ্রাম, শ্যামলী আদর্শ গ্রাম, পলস্নবী আদর্শ গ্রাম, চরকোড়ালিয়া আদর্শ গ্রাম, মধ্য ইচলি আদর্শ গ্রাম।
২৬
খেয়াঘাট/নৌকা ঘাট

২৭
দর্শনীয় স্থান
    বড়স্টেশন মোলহেড  নদীর মোহনা (চাঁদপুর সদর),
    জেলা প্রশাসকের বাংলোয় অবস্থিত দুর্লভ জাতের নাগলিঙ্গম গাছ।
    চাঁদপুর জেলার ঐতিহ্যের প্রতীক ইলিশ চত্বর।
    প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্ন সম্পদ এলাকা 
    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন মুক্তিযুদ্ধের স্মারক।
২৮
আদিবাসী  জনগোষ্ঠী সংখ্যা
ত্রিপুরা, চাকমা 
মোট জনসংখ্যাঃ ৩২২৭ জন
পুরুষঃ ১৫০৪ জন
মহিলাঃ ১৭২৩ জন
২৯
জনসংখ্যার ঘনত্ব
 প্রায় ১৫২৬ জন প্রতি বর্গ কিমি.
৩১
শিক্ষা (সর্বশেষ         আদমশুমারি )
    গড় হার প্রায় ৬৮%।
৩২
 স্বাস্থ্য
          
জেলায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল          ০১টি,
    মেডিকেল কলেজ ঃ০১ টি 
       উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স- ০৭টি,
       আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র (ICDDR,B, Matlab)  ০১টি (মতলব উপজেলা দক্ষিণ),

        মাতৃ মঙ্গল কেন্দ্র ০৩টি,
        চক্ষু হাসপাতাল ০১টি,
        বক্ষ ব্যাধী হাসপাতাল ০১টি,
        ডায়বেটিক হাসপাতাল ০১টি,
        রেডক্রিসেন্ট হাসপাতাল ০১টি,
          রেলওয়ে হাসপাতাল ০১টি,
        বেসরকারি হাসপাতাল (ক্লিনিক):         রেজিস্টার্ড-২০ টি,
        আন রেজিস্টার্ড- ০২টি
        বেসরকারি ডেন্টাল ক্লিনিক ৩টি

        বেসরকারি ডায়গনিস্টিক সেন্টারঃ রেজিস্টার্ড-৯২আনরেজিস্টার্ড-১৫টি

৩২
কৃষি
      
ধানপাটগমআখ,আলুসরিষাসুপারিসয়াবিনমরিচশাকসবজি , আলু ইত্যাদি।
৩৩
দুর্যোগ প্রবন এলাকা কিনা
হ্যাঁ আছেনদীভাঙ্গন এবং বন্যার দ্বারা আক্রান্ত একটি জনপদ চাঁদপুর।




উপরের সার সংক্ষেপঃ 
চাঁদপুর জেলায় ০৭ টি পৌরসভা, ৬০ টি ওয়ার্ড, ২৭৫ টি মহল্লা, টি উপজেলা, টি পুলিশ থানা, টি নৌ থানা, টি কোস্ট গার্ড স্টেশন, টি রেল থানা, আছে ৮৯ টি ইউনিয়ন পরিষদ এবং ১২২৬ টি গ্রাম রয়েছে।
----------------------------------------------------------------------------------------


জেলায় আটটি উপজেলা রয়েছেঃ 

০১সদর  ( চাঁদপুর ) উপজেলা 
০২) শাহরাস্তি উপজেলা
০৩) হাজীগঞ্জ উপজেলা
০৪) কচুয়া উপজেলা 
০৫) ফরিদগঞ্জ উপজেলা
০৬)মতলব উত্তর উপজেলা
০৭)মতলব দক্ষিণ উপজেলা
০৮) হাইমচর উপজেলা

জেলার ৭টি পৌরসভা হলো:-

০১সদর  ( চাঁদপুর ) উপজেলা 
০২) শাহরাস্তি উপজেলা
০৩) হাজীগঞ্জ উপজেলা
০৪) কচুয়া উপজেলা 
০৫) ফরিদগঞ্জ উপজেলা
০৬)মতলব উত্তর উপজেলা
০৭)মতলব দক্ষিণ উপজেলা ।

----------------------------------------------------------------------------------------

সদরসহ ও উপজেলার মানচিত্রঃ

abcbanglabd.com

chandpur map.abcbanglabd.com

Haimchar.abcbanglabd

Hajiganj.abcbanglabd.com

Kachua.abcbanglabd.com

Matlab.abcbanglabd.com

Shahrasti.abcbanglabd.com



রেল থানাটি হচ্ছে:- চাঁদপুর কোর্ট
নৌ থানার স্টেশন দুটি হচ্ছে:-চাঁদপুর, হাইমচর
কোস্ট গার্ড স্টেশন:- চাঁদপুর সদর
স্টেডিয়াম:-  ১৭৫ × ১৩৫ মি (৫৭৪ × ৪৪৩ ফু) আয়তনের  চাঁদপুর জেলা স্টেডিয়াম। 
----------------------------------------------------------------------------------------

জাতীয় সংসদীয় আসনঃ

চাঁদপুর জেলায় পাঁচটি সংসদীয় আসন আছে। 
নিম্নে এগুলো হলঃ
০১) ২৬০চাঁদপুর-, (কচুয়া উপজেলা)
০২) ২৬১চাঁদপুর-, (মতলব উত্তর  মতলব দক্ষিণ)
০৩) ২৬২চাঁদপুর-, (চাঁদপুর সদর  হাইমচর)
০৪) ২৬৩চাঁদপুর-, (ফরিদগঞ্জ)          
০৪) ২৬৪চাঁদপুর-, (হাজীগঞ্জ  শাহরাস্তি) চিকিৎসাব্যবস্থা  
   ( স্বাস্থ্য হাসপাতাল,   ডায়গনস্টিক );
০১) ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল ১টি
০২) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৮টি
      ০৩) আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র (ICDDR,B, Matlab) ১টি (বিশ্বের একমাত্র)
              (মতলব দক্ষিণ)
      ০৪) মাতৃমঙ্গল কেন্দ্র ৩টি
০৫) বক্ষব্যাধী হাসপাতাল ১টি
০৬) ডায়বেটিক হাসপাতাল ১টি
০৭) রেডক্রিসেন্ট হাসপাতাল ১টি
০৮) রেলওয়ে হাসপাতাল ১টি
০৯) বেসরকারি ডেন্টাল ক্লিনিক ৭টি
১০) ডায়গনস্টিক সেন্টার ১০৭টি।
            ১১) চক্ষু হাসপাতাল ৪টি
১২) বেসরকারি হাসপাতাল ৭৩টি

----------------------------------------------------------------------------------------

অন্যান্য তথ্য(জেলার):


উপজেলা নামসমুহ
আয়তন প্রায় (বর্গ কিঃমিঃ) 
পৌরসভা
আছে
ইউনিয়ন
আছে
মৌজা
আছে
গ্রাম
আছে
জনসংখ্যা
আছে
ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিঃমিঃ) প্রায় 
শিক্ষার হার (%) প্রায় 

কচুয়া ৫৮ 
২৩৫.৮২
১২
১৭৩
২৩২
৩৩১৩৬০
১৪০৫
৪৪.৮

চাঁদপুর সদর ২২ 
৩০৮.৭৯
১৪
১৪৬
১১০
৪৩৬৬৮০
১৪১৪
৫৭.১২

ফরিদগঞ্জ ৪৫ 
২৩১.৫৪
১৬
১৭৮
১৭৫
৩৭৪৭৬০
১৬১৯
৫৩.৮

মতলব (উত্তর) ৭৯ 
২৭৭.৫৩
১৩
১৪৭
২৪৮
২৯৯৯৩৫
১০৮১
৪৭.৯

মতলব (দক্ষিণ) ৭৬
১৩১.৬৯
৯৭
৯৯
২০৭৬১১
১৫৭৬
৪২.৪

শাহরাস্তি ৯৫
১৫৪.৩১
১৬২
১৬৩
২০৩৯৫২
১৩২২
৫৭.৩০

হাইমচর ৪৭
১৭৪.৪৯
-
২৮
৫৯
১২৫১০৮
৭১৭
৪০.২৯

হাজীগঞ্জ ৪৯
১৮৯.৯০
১১
১৩১
১৫১
২৯১৮২৩
১৫৩৭
৪৯.১২



জনসংখ্যাঃ
মোট: ২৬ লক্ষ ২৬৩ জন, পুরুষ:৫২.১০% = ১৩ লক্ষ ৫৪ হাজার ৭৩২ জন, এবংমহিলা: ৪৭.৮৯% = ১২ লক্ষ ৪৫ হাজার ৫৩১ জন।
ধর্মঃ মুসলমান: ৯২.৫৫%, হিন্দু: .১৮%, বৌদ্ধ: .০৬%, খ্রিস্টান: .০৭% এবং অন্যান্য: .১৪% রয়েছেন।
                                                                                      
কৃতি ব্যক্তিত্বঃ

Ø  মিজানুর রহমান চৌধুরী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী।
Ø  মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, বীর উত্তম (এক নং সেক্টর কমান্ডার), সংসদ সদস্য।
Ø  লে. কর্নেল (অব.) আবু ওসমান চৌধুরী (আট নং সেক্টর কমান্ডার)
Ø  শহীদুল আলম রব (রব কমান্ডার) সাব-সেক্টর কমান্ডার, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক।
Ø  বদিউল আলম, বীর উত্তম। 
Ø  ওয়ালী উল্লাহ নওজোয়ান, গবেষক, রাজনীতিবিদ, সমাজসেবক, ভাষা সৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষক।
Ø  আইউব আলী খান, শিক্ষক, সমাজসেবক, ভাষা সৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা ও রাজনীতিবিদ।
Ø  আব্দুল করিম পাটওয়ারী, মুক্তিযুদ্ধের সংঘটক।
Ø  এম এ ওয়াদুদ, ভাষা সৈনিক ও মুক্তিযুদ্ধের সংঘটক।
Ø  মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, বীর উত্তম।
Ø  সিরাজুল মওলা, বীর উত্তম।
Ø  সালাহউদ্দিন আহমেদ, বীর উত্তম।
Ø  দেলোয়ার হোসেন (বীর প্রতীক)
Ø  মোহাম্মদ তবারক উল্লাহ, বীর প্রতীক।
Ø  আবদুল হাকিম (মুক্তিযোদ্ধা), বীর প্রতীক।
Ø  নূরুল হক (বীর প্রতীক)
Ø  আবু তাহের (বীর প্রতীক)
Ø  মোহাম্মদ আবদুল মমিন, বীর প্রতীক।
Ø  শামসুল হক (বীর প্রতীক)
Ø  আবুল হোসেন (বীর প্রতীক)
Ø  মোহাম্মদ আবদুল হাকিম, বীর প্রতীক।
Ø  আবুল কাশেম ভূঁইয়া (বীর বিক্রম)
Ø  মোহাম্মদ মহিবুল্লাহ, বীর বিক্রম।
Ø  আবদুল হালিম (বীর বিক্রম)
Ø  মোহাম্মদ বজলুল গণি পাটোয়ারী, বীর বিক্রম।
Ø  আবদুল জব্বার পাটোয়ারী, বীর বিক্রম।
Ø  আমিন উল্লাহ শেখ (বীর বিক্রম)
Ø  মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া (বীর বিক্রম) মন্ত্রী।
Ø  ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গল, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিবাহিনীর বেঙ্গল প্লাটুনের কমান্ডার এবং রাজনীতিবিদ।
Ø  . এম.এ সাত্তার, বেইস প্রতিষ্ঠাতা।
Ø  মোঃ নুরুল হুদা, মুক্তিযোদ্ধা ও ৪ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য চাঁদপুর-২ আসন থেকে।
Ø  রফিকুল ইসলাম (অধ্যাপক), একজন বাংলাদেশী লেখক এবং দেশের প্রথম নজরুল গবেষক।
Ø  মুনতাসীর মামুন, একজন লেখক ও শিক্ষাবিদ
Ø  শান্তনু কায়সার, সাহিত্যিক।
Ø  মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন, সাংবাদিক।
Ø  নাজিম উদ্দিন মোস্তান, সাংবাদিক।
Ø  নাসির উদ্দিন, সম্পাদক, সওগাত।
Ø  নূরজাহান বেগম, সম্পাদক, মাসিক বেগম।
Ø  হাশেম খান, বরেণ্য চিত্রশিল্পী।
Ø  ঢালী আল মামুন, চিত্রশিল্পী।
Ø  শাইখ সিরাজ, গণ মাধ্যম ব্যক্তিত্ব, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান।
Ø  আহমদ জামান চৌধুরী, চলচ্চিত্র সাংবাদিক, চলচ্চিত্রের কাহিনী, চিত্রনাট্য, সংলাপ ও গীতিকার।
Ø  আলমগীর হায়দার, ৪ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য চাঁদপুর-৪ আসন থেকে।
Ø  লায়ন হারুনুর রশীদ, চাঁদপুর-৪ আসন থেকে নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য।
Ø  . শামছুল হক ভূঁইয়া, সংসদ সদস্য।
Ø  মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বাংলাদেশ পুলিশের বর্তমান আইজিপি।
Ø  আজিজ আহমেদ (জেনারেল), বাংলাদেশের বর্তমান সেনাপ্রধান।
Ø  সুফী মোহাম্মদ আহসান হাবীব, উদ্ভিদ বিজ্ঞানী, তাসাউফ গবেষক, সাংবাদিক।
Ø  নওয়াব আলী, ঢাকা মেডিকেল কলেজের প্রথম অধ্যক্ষ।
Ø  আমেনা বেগম, রাজনীতিবিদ।
Ø  মোতাহের হোসেন পাটওয়ারী, রাজনীতিবিদ, সমাজসেবক ও আম্বিয়া ইউনুস ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা।
Ø  আলহাজ্ব এম এ হান্নান, বিশিষ্ট সমাজসেবক, রাজনীতিবিদ ও মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান।
Ø  বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী এ কে এম আব্দুল মোতালেব, গণপূর্ত বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী।
Ø  অ্যাডঃ আবদুল আউয়াল, ভাষা সৈনিক, ৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানের অগ্রসেনানী, মুক্তিযোদ্ধা ও রাজনীতিবিদ।
Ø  . হেলাল উদ্দিন খান শামছুল আরেফিন, নৃবিজ্ঞানী।
Ø  মিসেস নিলুফা বেগম, কলামিস্ট।
Ø  মীর ইকবাল হোসেন, মনোয়ারা হাসপাতল, আরিবাবাদ কো-অপারেটিভ ও ইকবাল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
Ø  অধ্যাপক ডাঃ একেএম শহীদুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি।
Ø  আই.জি মোহাম্মদ হোসাইন আহাম্মদ, শাহরাস্তি উপজেলার প্রতিষ্ঠাতা।
Ø  এলাহী বক্স পাটোয়ারী, মুক্তিযোদ্ধা।
Ø  নূরজাহান বেগম মুক্তা, রাজনীতিবিদ।
Ø  মমিনউল্লাহ পাটোয়ারী, বীরপ্রতীক।
Ø  রাস্তি শাহ, ইসলাম ধর্ম প্রচারক।
Ø  আমির হোসেন খান, সমাজসেবক ও বিভিন্ন কোম্পানির সাবেক চেয়ারম্যান।
Ø  দিলদার, অভিনেতা।
Ø  দিলারা জামান, অভিনেত্রী।
Ø  সাদেক বাচ্চু (মাহবুব আহমেদ সাদেক বাচ্চু ), বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম খলঅভিনেতা।  
Ø  হুমায়ূন কবীর ঢালী, খ্যাতিমান শিশুসাহিত্যিক।
Ø  আব্দুল্লাহ সরকার, রাজনীতিবিদ।
Ø  মো. সবুর খান, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির ও ড্যাফোডিল ফ্যামিলির প্রতিষ্ঠাতা।
Ø  কবির বকুল, গীতিকার ও সাংবাদিক।
Ø  এম এ মাওলানা আবদুল মান্নান, সাবেক ধর্ম মন্ত্রী এবং ত্রাণ পুনর্বাসনমন্ত্রী ও সংসদ সদস্য।
Ø  . মহিউদ্দীন খান আলমগীর, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
Ø  আ ন ম এহসানুল হক মিলন, সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী।
Ø  রাশেদা বেগম হীরা, সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদ, নারীনেত্রী।
Ø  ডা. দীপু মনি, প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
Ø  আবদুর রব মিঞা, ভাষা আন্দোলনের সৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক, মুক্তিযোদ্ধা ও রাজনীতিবিদ।
Ø  অ্যাডঃ সিরাজুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক, মুক্তিযোদ্ধা ও রাজনীতিবিদ এবং সাবেক সংসদ সদস্য।
Ø  অ্যাডঃ জাফর মাঈনউদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক, মুক্তিযোদ্ধা, রাজনীতিবিদ ও সংসদ সদস্য।
Ø  ডা: মুহাম্মদ গোলাম ফারুক ভুঁইয়া, সমাজসেবক, ডাক্তার সমাজের নেতা,সাবেক Civil surgeon, সাবেক সভাপতি Rotary club Chandpur. ইত্যাদি  প্রমুখ । 



 শিক্ষার হারঃ
    জেলায়  শিক্ষার হার ৬৯.% সরকারি বেসরকারি অনার্স কলেজে ২টি, ডিগ্রি কলেজ: ৭ টিমাধ্যমিক বিদ্যালয়: ২৫০ টি, মাদ্রাসা: ,২৫৭ টি, পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট: টি, টিচার্স ট্রেনিং কলেজ: টি, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট: টি,  ও মেরিন একাডেমি : টি ।



জেলার উল্লেখযোগ্য কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানঃ
     
 ·         বাবুরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ (১৮৯৯)
·         চাঁদপুর পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট (২০০৫)
·         চাঁদপুর সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ (১৯৪৬)
·         চাঁদপুর সরকারী মহিলা কলেজ
·         আল-আমিন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজ
·         পুরাণবাজার ডিগ্রি কলেজ
·         হাজীগঞ্জ মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ (১৯৮৭)
·         হাজীগঞ্জ দারুল উলুম আহমাদিয়া কামিল (স্নাতকোত্তর) মাদ্রাসা।
·         হাসান আলী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৮০)
·         মাতৃপীঠ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৬৯)
·         শাহরাস্তি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯১৪)
·         চাঁদপুর গভর্ণমেন্ট টেকনিক্যাল হাই স্কুল(১৯৬৫)
·         ফরিদগঞ্জ মজিদিয়া কামিল মাদ্রাসা
·         ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সরকারী কলেজ
·         ফরিদগঞ্জ আর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়
·         চান্দ্রা ইমাম আলী উচ্চ বিদ্যালয় কলেজ
·         কেরোয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
·         লতিফগঞ্জ ইসলামিয়া ফাজিল(ডিগ্রী) মাদ্রাসা
·         হাজীগঞ্জ মডেল পাইলট স্কুল এন্ড কলেজ
·         রহিমানগর বি বি উচ্চ বিদ্যালয়
·         কচুয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৩৭)
·         জামিয়া ইসলামিয়া ইব্রাহিমিয়া উজানি মাদ্রাসা
·         মাদ্রাসাতু ইশায়াতিল উলুম, গাছতলা
·         গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ
·         সাহেবগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়
·         আলোনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়
·         কালিরবাজার মিজানুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়
·         হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ
·         বলাখাল মুকবুল আহমেদ ডিগ্রি লেজ
·         ধড্ডা মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী ডিগ্রি লেজ
·         বাগানবাড়ী আইডিয়েল একাডেমী
·         শ্যামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
·         সাচার উচ্চ বিদ্যালয়
·         নুনিয়া ইসলামিয়া সিনিয়ার ফাজিল মাদ্রাসা
·         বালিথুবা আবদুল হামিদ উচ্চ বিদ্যালয়
·         চরভৈরবী উচ্চ বিদ্যালয়
·     ডাঃ রশীদ আহমেদ উচ্চ বিদ্যালয় কলেজ (   লাউ তলীর)
·         খেড়িহর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়
·         কে,ভি,এন উচ্চ বিদ্যালয়
·         জাফরাবাদ জামায়ে আরাবিয়া কাসেমূল উলূূম হাফেজিয়া মাদ্রাসা
·         নূরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়,পুরানবাজার,পূব শ্রীরামদি
·         ফরক্কাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৩৪) ইত্যাদি

-----------------------------------------------------------------------------------------------
জেলার অর্থনীতিঃ

চাঁদপুর জেলার অর্থনীতি মূলত কৃষিভিত্তিক। নদী তীরবর্তী এলাকা বলে প্রায় ২০% মানুষ প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে মৎস্য শিল্পের সাথে জড়িত। এছাড়াও উল্লেখযোগ্যভাবে অনেক ব্যবসায়ী বিদ্যমান। জেলা সদরে অনেক মাছের আড়ত রয়েছে, যা জেলার অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি। চাঁদপুর শহরের প্রাণকেন্দ্র বাবুরহাটে বড়বড় বহু শিল্পকারখানা রয়েছে। এই স্থানে সরকার বিসিক শিল্প নগরী ঘোষণা করে। এই এলাকাটি শুধু চাঁদপুরের নয় পুরো বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি আশীর্বাদ স্বরূপ শিল্প নগরী। মেঘনার ভাঙ্গনে প্রতি বছর চাঁদপুরের আয়তন কমে গেলেও মেঘনা, চাঁদপুরের জন্য আশীর্বাদস্বরূপ। প্রতি বর্ষায় পানিতে ডুবে যায়, ফলে বর্ষাকালে চাঁদপুর মাছের মাতৃভূমি হয়ে যায়। জেলার প্রধান শস্য ধান, পাট, গম, আখ। রপ্তানী পণ্যের মধ্যে রয়েছে নারিকেল, চিংড়ি, আলু, ইলিশ মাছ, সবুজ শাক-সবজি, বিসিক নগরীর তৈরি পোশাক শিল্প।

জেলার কিছু চিত্তাকর্ষক স্থানঃ

o    বখতিয়ার খান মসজিদ, কচুয়া।
o    বড়স্টেশন মোলহেড নদীর মোহনা, বড়স্টেশন (চাঁদপুর সদর)
o    জেলা প্রশাসকের বাংলোয় অবস্থিত অতি দুর্লভ জাতের নাগলিঙ্গম গাছ।
o    চাঁদপুর জেলার ঐতিহ্যের প্রতীক ইলিশ চত্বর , চাঁদপুর সদর ।
o    প্রাচীন নিদর্শনাদি প্রত্নসম্পদ এলাকা।
o    মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন মুক্তিযুদ্ধের স্মারক।
o    অঙ্গীকার স্মৃতিসৌধ
o    রক্তধারা স্মৃতিসৌধ
o    ওনুয়া স্মৃতি ভাস্কর্য
o    শহীদ রাজু ভাস্কর্য
o    ইলিশ চত্বর
o    শপথ চত্বর
o    চাঁদপুর চিড়িয়াখানা, সাচার।
o    মত্স্য জাদুঘর,চাঁদপুর।
o    সরকারী বোটানিকাল গার্ডেন,চাঁদপুর।
o    সরকারী শিশু পার্ক।
o    রাগৈ মুঘল আমলের গম্বু মসজিদ।
o    হাজীগঞ্জ বড় মসজিদ (৬ষ্ঠ বৃহত্তম)
o    হযরত শাহরাস্তি (রঃএর মাজার শরীফ
o    নাওড়া মঠ
o    মঠখোলার মঠ (বর্তমানে অস্তিত্ব নেই)
o    পর্তুগীজ দুর্গ, সাহেবগঞ্জ
o    মতলব উত্তরে মোহনপুরে মেঘনা নদীর তীর।
o    মনসা মুড়া,কচুয়া উপজেলায় অবস্হিত।
o    সাচার রথ, কচুয়া উপজেলার একটি প্রাচীন রথ।
o    সাহাপুর রাজবাড়ি
o    মেঘনা-পদ্মার চর।
o    ফাইভ স্টার পার্ক।
o    গুরুর চর।
o    রূপসা জমিদার বাড়ি
o    কড়ৈতলী জমিদার বাড়ি
o    চৌধুরী বাড়ি
o    বোয়ালিয়া জমিদার বাড়ি
o    বলাখাল জমিদার বাড়ি
o    বড়কুল জমিদার বাড়ি (ভাগ্যিতা বাড়ি)
o    লোহাগড় মঠ
o    তুলাতুলী মঠ
o রামচন্দ্রপুর বড় পাটওয়ারী বাড়ী (ডাকাতিয়া নদী সংলগ্ন অপূব সৌন্দযময় স্থান)বাগদী ইউনিয়ন,চাঁদপুর । 

-----------------------------------------------------------------------------------------
জেলার পত্র-পত্রিকাঃ

§  দৈনিক পত্রিকা: ১৩টি; চাঁদপুর প্রবাহ, চাঁদপুর কণ্ঠ, চাঁদপুর দর্পণ, চাঁদপুর বার্তা, ইলশেপাড়, চাঁদপুর সংবাদ, চাঁদপুর দিগন্ত, আলোকিত চাঁদপুর, চাঁদপুর খবর, মেঘনাবার্তা, ইলশেপাড়, চাঁদপুর সময়, সুদীপ্ত চাঁদপুর
§  অনলাইন পত্রিকা: ৪টি; চাঁদপুর টাইমস, চাঁদপুর নিউজ, চাঁদপুর ওয়েব, চাঁদপুর রিপোর্ট ও মাসিক পত্রিকা: ৪টি।
    ---------------------------------------------------------------------------------------
    ---------------------------------------------------------------------------------------
    ---------------------------------------------------------------------------------------

    কোন মন্তব্য নেই

    Blogger দ্বারা পরিচালিত.